eFighter

3 Best Ways of Freelancing [সেরা ৩ টি ফ্রিল্যান্সিং এর উপায়]

Ways of Freelancing

ফ্রিল্যান্সিং হলো বর্তমান বিশ্বের অন্যতম এবং একমাত্র মুক্ত পেশা। অর্থাৎ একজন ঘরে বসেই একটি অথবা একাধিক নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদনের মাধ্যমে আয়কে ফ্রিল্যান্সিং বুঝায়। আরেকভাবে বলা যায় যে কাজ শুধু নিজের ইচ্ছাকে প্রাধান্য দিয়ে করা অর্থাৎ কোনো রকম নির্দেশনার ভিতর আবদ্ধ না থেকে এক বা একাধিক বিষয়ে দক্ষতার মাধ্যমে মুক্ত ভাবে করা যায় তাকে বুঝায়। বর্তমান বিশ্বে এর চাহিদা গগনচুম্বি, যা এখন বিশ্বের বড় একটি জনগুষ্ঠিকে উপার্জনের ব্যবস্থা করেছে। এবং তারা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন উপায়ের মাধ্যমে এই ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার কে আরো উন্নত থেকে উন্নতর করে তুলছেন।

ঘরে বসেই একটি কম্পিউটারের সাহায্যে বিভিন্ন দক্ষতার মাধ্যমে কাজ সম্পাদন করে আয় করছেন হাজার হাজার ডলার । অনেক বেকার এখন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেক প্রশিক্ষন নিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে  দক্ষতা লাভ করে নতুন করে ফ্রিল্যান্সিং এর দিকে ধাবিত হচ্ছে এর ফলে বেকারত্ব নামক অভিশাপ অনেকাংশে দূর করা সম্ভব হচ্ছে । এর মধ্যে অনেক গুলো আলাদা আলাদা সেক্টর রয়েছে যেমন, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট , ডিজিটাল মার্কেটিং , কন্টেন্ট রাইটিং ইত্যাদি। এই বিভাগ গুলোতে পারদর্শী হয়ে যে কেউ ফ্রিল্যান্সিং করে সহজেই আয়ের দিকে ধাবিত হতে পারে।

3 Best Ways of Freelancing 

গ্রাফিক্স ডিজাইনঃ

Ways of Freelancing
3 Best Ways of Freelancing

বর্তমান বিশ্বে ডিজিটাল মিডিয়ার চাহিদা ব্যাপক । পত্রিকার বিজ্ঞাপণ থেকে শুরু করে ইন্টারন্যাশনাল পর্যায়ের সিনেমাতেও গ্রাফিক্স এর অবদান ব্যাপক , হোক সেটা স্থীরচিত্র কিংবা কোনো এনিমেশন অথবা কোনো প্রকার ভিডিও । দৈনন্দিন জীবনে প্রতিনিয়ত আমরা এই গ্রাফিক্স এর কিছু না কিছু কাজ দেখে কিংবা ব্যবহার করে থাকি। যেমন ভিজিটিং কার্ড, বিজনেস কার্ড, কোনো কোম্পানির লগো, ব্রশিউর, এনিমেশন ক্লিপ, আনরিয়াল ক্যারেক্টার ইত্যাদি , এসব তৈরি হয় কোনো না কোনো গ্রাফিক্স ডিজাইনার দ্বারা।

বর্তমান গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা অনেক বেশি বেড়েছে, যেমন ইউ আই /ইউ এক্স ডিজাইনকেই ধরি। এটি হচ্ছে একটি সফটওয়্যার অথবা একটি ওয়েবসাইটের ইন্টারফেস তৈরি করতে সক্ষম। এই ডিজাইনাররা তাদের দক্ষতা কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন ডিজাইন তৈরি করে থাকেন যা পরবর্তিতে একটি সফটওয়্যার কিংবা একটি ওয়েবসাইটে রূপ নেয়।ফ্রিল্যান্সাররা এমন অনেক কাজে দক্ষতা অর্জন করে থাকেন। বিশ্বে অনেক বড় বড় মার্কেটপ্লেস রয়েছে যেমনঃ  Fiverr, Upwork, PeoplePerHour, freepik ইত্যাদি এইগুলোতে গ্রাফিক্স এর বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে অনেক ধরনের কাজের সুযোগ রয়েছে যার মাধ্যমে একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গড়ে উঠা সম্ভব।

ডিজিটাল মার্কেটিংঃ

3 Best Ways of Freelancing

 প্রতিটা ব্যবসার জন্যেই মার্কেটিং অথবা প্রচার আবশ্যক। কোনো ব্যবসাই এই মার্কেটিং ছাড়া এগুতে অক্ষম। ক্রেতার কাছে পন্যের সার্বিক তথ্য তুলে ধরাই হচ্ছে মার্কেটিং এবং এটি যখন ডিজিটাল উপায়ে হয়ে থাকে তখন এটি হয়ে উঠে ডিজিটাল মার্কেটিং। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং করার একটি অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং । দিন দিন বিশ্ব জুড়ে ডিজিটাল ব্যবসায়িক পরিবেশ বিষদ পরিসরে বৃদ্ধি পাচ্ছে সেই সাথে মার্কেটিং এরও অনেক দিক নতুন করে তৈরি হচ্ছে । এর মধ্যে ডিজিটাল মার্কেটিং সবার থেকে এগিয়ে , এর অন্যতম কারন হচ্ছে এটি খুব কম সময়ে এবং সহজেই মানুষের দোড়গোড়ায় পৌছে যেতে সক্ষম।

ডিজিটাল মার্কেটিং বিভিন্ন উপায় আছে যেগুলো দ্বারা দক্ষ ফ্রিল্যান্সার হওয়া সম্ভব, যেমন- এসইও, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, কন্টেন্ট মার্কেটিং , ইমেইল মার্কেটিং ইত্যাদি। এসব কাজে দক্ষতা অর্জন করে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে অথবা লোকাল ক্লায়েন্ট দ্বারাও সফল ফ্রিল্যান্সার হয়ে অর্থ উপার্জন সম্ভব। বর্তমানে অনেক প্রতিষ্ঠান এই ডিজিটাল মার্কেটিং শিখিয়ে সফল ফ্রিল্যান্সার গঠনে গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা পালন করে আসছে। এটিও ফ্রিল্যান্সিং এর একটি সেরা উপায় (Best Ways of Freelancing).

ওয়েব ডেভেলপমেন্টঃ

Ways of Freelancing

বর্তমান বিশ্বে ডিজিটাল উপায়ে সব কাজের একটি সাধারন এবং কমন মাধ্যম হচ্ছে একটি ওয়েবসাইট । যে টি এখন একটি ব্যবসা প্রতিষ্টান, স্কুল,ব্যাংক , সরকারি প্রতিষ্টান, এনজিও, বড় কোনো সংস্থা অথবা একটি দেশ এর জন্যও একটি মৌলিক উপাদান হয়ে দাড়িয়েছে। যার মাধ্যমে খুব সহজে একটি প্রতিষ্ঠান কিংবা জনগোষ্ঠিকে পরিচিত করাতে সম্ভব। একটি ওয়েবসাইট গঠনে কিছু ধাপ আছে, একটি ওয়েবসাইটের সাধারন গঠন ধারনা করা, এবং সে অনুযায়ী HTML, CSS, Javascript,  php, python অথবা ওয়েববেসড যে কোনো প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ, একটি উন্নত ডাটাবেজ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ইত্যাদি প্রয়োজন ।  

একজন প্রফেশনাল ওয়েব ডেভলপার এসব কিছুতে পরিপূর্ন দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে সেই জ্ঞান কে কাজে লাগিয়ে অনেক সুন্দর এবং অনেক রকম ফাংশন সমৃদ্ধ একটি ওয়েবসাইট গঠনে সম্ভব। এছাড়া কোনো রকম কোডিং বা প্রোগ্রামিং জ্ঞান ছাড়াই কম সময়ে সুন্দর ওয়েবসাইট তৈরি করা সক্ষম জনপ্রিয় কিছু কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম দ্বারা, যার মধ্যে উল্লখযোগ্য হচ্ছে, ওয়ার্ডপ্রেস, জুমলা, দ্রুপাল ইত্যাদি। এগুলোর মাধ্যমে খুব সহজেই সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়া সম্ভব যার জন্য দরকার শুধু নিয়ম মাফিক কাজ এবং পরিপূর্ন দক্ষতা অর্জন।

এই তিনটি মাধ্যম হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং এর অন্যতম মাধ্যম অর্থাৎ Best ways of freelancing.

ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে যেকোন তথ্য পেতে যুক্ত হোন আমাদের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজেঃ eFighter

আমাদের ফেইসবুক গ্রুপঃ eFighter Club

আরও পড়ুনঃ

Dropshipping Beginner’s Guide

কেমন হওয়া উচিত আপনার ব্র্যান্ডের ডোমেইন : choosing a Brandable Domain

সেরা ৪ টি ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন্স [4 Best WordPress Plugins]

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *